বেলস পালসি ও কিছু কথা

Bells palsy
Bell’s Palsy treatment in Bangladesh

বেলস পালসি (Bell’s Palsy)কি?


বেলস পালসি এমন একটি ভাইরাল বা ইনফেকসন অথবা যেকোন ধরনের ফেসিয়াল নার্ভের ইঞ্জুরিজনিত রোগ । যার ফলে একজন ব্যক্তির মুখ এবং চোখের যেকোনো এক পাশের মাংস পেশি দুর্বল অথবা অবস হয়ে যেতে পারে। যা ব্যক্তির কথা বলতে, খাবার চিবাতে অথবা খাবার ধরে রাখতে, খাবারের স্বাদ নিতে, চোখের পলক ফেলতে, এমনকি খাবার গিলতেও সমস্যার সৃষ্টি করে।

বেলস পালসি হওয়ার কারন কি?


বিভিন্ন বিশেষজ্ঞদের মতে (CN- vii) ভাইরাসে আক্রান্ত হলে বেলস পালসি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এখন পর্যন্ত হার্পিস ভাইরাস কে বেলস পালসির মুখ্য কারন বলা হয়ে থাকে।


বেলস পলসির উপসর্গসমূহঃ


• প্রাথমিক অবস্থায় মুখের যে কোনো একপাশের ( ডান অথবা বাম) মাংসপেশির দুর্বলতা বা বেঁকে যাওয়া।
• আক্রান্ত পাশের চোয়ালে ব্যাথা হতে পারে।
• মুখের আক্রান্ত পাশে খাবার ধরে রাখতে ও গিলতে সমস্যা হতে পারে।
• মুখ থেকে খাবার ও পানি এক পাশ দিয়ে পড়ে যায়।
• মুখের লালা শুকিয়েও যেতে পারে।
• মুখ ভঙ্গি অথবা ফেসিয়াল এক্সপ্রেশন- এ সমস্যা হতে পারে।
• কথা বলতে গেলে জড়তা অনুভব হতে পারে।
• চোখ বন্ধ করতে সমস্যা হতে পারে।
• চোখ দিয়ে পানি পড়তে পারে।
• খাবারের স্বাদ গ্রহনে সমস্যা হতে পারে।
• কানে শুনতে সমস্যা হতে পারে ।

বেলস পালসির পরবর্তী জটিলতার সমস্যা সমূহঃ

• কথা বলতে সমস্যা হয়।
• উচ্চারনগত সমস্যা হয়।
• কথা জড়িয়ে যায়।
• খাবার চিবাতে সমস্যা হয়।
• খাবার মুখ থেকে পড়ে যায়।
• খাবারের পিণ্ড বানাতে সমস্যা হয়।
• ওজন কমে যায়।

বেলস পালসি সমস্যা হওয়ার পর করনীয়:


• প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহন করা।
• স্পিচ এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ থেরাপিস্টের কাছে যাওয়া।
• সার্জারি।

Speech and language therapy in bangladesh

স্পিচ এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ থেরাপি নিয়ে কিছু পরামর্শঃ


• খাবার চিবানোর সময় আক্রান্ত পাশ দিয়ে খাবেন।
• থেরাপিস্টের দেখানো নিয়মে ব্যায়াম করবেন।
• চিকিৎসকের ফলোআপে থাকবেন।

পরিবারের সদস্যদের করনীয়:
• বেলস পালসি সম্পর্কে ধারনা থাকা
• চিকিৎসকের নিকট/ শরণাপন্ন হওয়া ।
• রোগীর ঠিকমতো চিকিৎসা হচ্ছে কিনা খেয়াল রাখা।

যদি সমস্যা প্রকট হয় এবং শিশু কথা না বুঝতে পারে বা প্রকাশ না করে সে ক্ষেত্রে দেরি না করে অবিলম্বে “বাংলাদেশ রিহ্যাবিলিটেশন কাউন্সিল আইন-২০১৮” অনুযায়ী  কোয়ালিফাইড স্পিচ এন্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্ট এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। একজন স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্ট বেলস পালসি,  শিশুর ভাষা- যোগাযোগ সামাজিক দক্ষতা সংক্রান্ত সমস্যা নির্ণয় করে সে অনুযায়ী চিকিৎসা প্রদান করে, শিশুর ভাষা বিকাশকে স্বাভাবিক করতে সাহায্য করবেন।

আরো বিস্তারিত জানতে চাইলে সোসাইটি অফ স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্টের  ফেসবুক পেজটি দেখতে পারেন।

Sanjida Rahman Suchona.
Ingenious Care Limited (ICL), Mirpur Dhaka.
Member of Society of Speech & Language Therapists.

Add your thoughts

Your email address will not be published. Required fields are marked *